গাভী গরুর খাদ্য ও পুষ্টি ব্যবস্থাপনা (বাংলা ই-বুক) PDF

(2 customer reviews)
Original price was: 200.00৳ .Current price is: 150.00৳ .

গাভীর স্বাস্থ্য ও সঠিক দুধ উৎপাদন নিশ্চিত করতে সাশ্রয়ী দামে সঠিক মান সম্পন্ন খাদ্য সরবরাহের বিকল্প নেই। ডেইরি খামারিদের গাভী গরুর খাদ্য ব্যবস্থাপনায় আরো দক্ষতা অর্জন করতে বই টি সহযোগীতা করবে।

Description

দুগ্ধ খামারের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ দিক হলো খাদ্য ব্যবস্থাপনা। ডেইরি খামারির সবচেয়ে বেশি টাকা ব্যায় করতে হয় এই খাতে। অন্যদিকে খামারের উৎপাদন বহুলাংশে নির্ভর করে সঠিক খাদ্য ব্যবস্থাপনার উপর।

বর্তমান সময়ে গো খাদ্য ও সকল খাদ্য উপকরনের দাম বহুলাংশে বৃদ্ধি পেয়েছে যারফলে কম খরচে পর্যাপ্ত মানসম্পন্য খাদ্য নিশ্চিত করা কঠিন হয়ে পরেছে।

গাভী গরুর খাদ্য ও পুষ্টি ব্যবস্থাপনা (বাংলা ই-বুক) PDF

এমন পরিস্থিতিতে গাভী গরুর খাদ্য ব্যবস্থাপনায় আমাদের অনেক কৌশলি হতে হচ্ছে। বিকল্প খাদ্য ও খাদ্য উপাদানগুলোর ব্যবহার বৃদ্ধি করতে হচ্ছে।

আমাদের যদি গাভী গরুর পুষ্টি ও খাদ্য ব্যবস্থাপনার উপর পর্যাপ্ত ধারনা না তৈরি করতে পারি তবে লাভজনক দুগ্ধ খামার পরিচালনা করতে ব্যর্থ হবো।

গাভি গরুর খাদ্য কে আমরা ২ টি ভাগে ভাগ করা যায়। যথা-

  • আঁশজাতীয় খাদ্য
  • দানাদার খাদ্য

আঁশজাতীয় খাদ্য

শুষ্ক আঁশজাতীয় খাদ্যে শতকরা ১০-১৫ ভাগ পানি বা জলীয় অংশ থাকে যেমনঃ বিভিন্ন প্রকার খড়। রসালো আঁশ জাতীয় খাদ্যে শতকরা 70-85 ভাগ পানি বা জলীয় অংশ থাকে যেমনঃ কাঁচা ঘাস, লতাগুল্ম, বিভিন্ন গাছের পাতা, মাসকলাই, খেসারী ইত্যাদি।

সম্পূরক/দানাদার খাদ্য

বিভিন্ন প্রকার ডাল জাতীয় শস্যদানা ও শস্যদানার উপজাত। যেমনঃ ডালের ভুসি, গমের ভুসি, খৈল, চালের কুঁড়া ইত্যাদি।

শুকনো খড় গরুর আরেকটি দরকারি খাদ্য উপকরণ। খড়ে পুস্টি কম ও ক্ষতিকর সিলিকেট থাকলেও পেট ভরানো ও রুমেনের স্বাস্থ্য ঠিক রাখার জন্য খড় গুরুত্বপূর্ন গোখাদ্য। প্রতি কেজি খড় থেকে গড়ে ৫-৬ মেগাজুল শক্তি পাওয়া যায়।

শুকনো খড় বা বিছালি

কাঁচা ঘাসের উৎপাদন কম থাকলে অথবা গরুর রুমেনের স্বাস্থ্য ঠিক রাখতে কাঁচা ঘাসের সাথে ৩ঃ২ অনুপাতে খড় মিশিয়ে খাওয়াতে হবে।

বছরের সকল সময় শুকনো খড় বা বিছালির দাম সমান থাকে না। ধান কাটার মৌসুমে বিছালি ও খড়ের দাম কম থাকে। সেই সময় খামারের চাহিদার পুরোটাই কিনে রাখা উচিত নতুবা উচ্চ মুল্যে খড় ক্রয় করলে খামারের খাদ্য খরচ কমানো যাবে না।

সবচেয়ে ভালো হয় জমি লিজ নিয়ে ধানের আবাদ করতে পারলে। এতে খড়ের উৎপাদন খরচ আরো কম পড়বে।

খড় কে ইউরিয় ও চিটাগুড় দ্বারা প্রোক্রিয়াজাত করলে খরের গুনগত মান অনেক গুন বৃদ্ধি পায়। এধরণের প্রোক্রিয়াজাত খরকে ইউরিয় মোলাসেস ইস্ট্র বা ইউএমএস বলে।

আরো বই দেখুনঃ প্রাণি খাদ্য তৈরি নির্দেশিকা (Guidelines for Making Animal Feed) pdf বই

2 reviews for গাভী গরুর খাদ্য ও পুষ্টি ব্যবস্থাপনা (বাংলা ই-বুক) PDF

  1. গোলাম হোসেন

    খুব ভালো একটি বই। গুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্য রয়েছে। ধন্যবাদ প্রাণিসম্পদ.কম।

  2. Admin

    THANK YOU

Add a review

Your email address will not be published. Required fields are marked *